স্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তর নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি ২০২০

স্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তর নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি, স্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তর বাংলাদেশের সরকারি ও বেসরকারি স্বাস্থ্য অবকাঠামো নির্মাণ, উন্নতিকরণ ও রক্ষণাবেক্ষণের দায়িত্বে নিয়োজিত সরকারের স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের অধীন একটি নিয়ন্ত্রক সংস্থা।

সম্প্রতি স্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তর চাকরি বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেছে। আগ্রহী ও যোগ্য ব্যক্তিদের আবেদন করার আহব্বান করা হচ্ছে।

১।পদের নামঃ হিসাব রক্ষক

  • পদের সংখ্যাঃ ০৪
  • শিক্ষাগত যোগ্যতাঃ স্বীকৃত কোনো বিশ্ববিদ্যালয় হতে বাণিজ্যে স্নাতক ডিগ্রী।
  • বেতনঃ ১০,২০০-২৪,৬৮০।

স্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তর নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি

২।পদের নামঃ অফিস সহকারী কাম কম্পিউটার অপারেটর

  • পদের সংখ্যাঃ ১১
  • শিক্ষাগত যোগ্যতাঃ উচ্চ মাধ্যমিক সার্টিফিকেট।
  • বেতনঃ ৯,৩০০-২২,৪৯০।

৩।পদের নামঃ অফিস সহায়ক

  • পদের সংখ্যাঃ ১১
  • শিক্ষাগত যোগ্যতাঃ উচ্চ মাধ্যমিক সার্টিফিকেট।
  • বেতনঃ ৯,৩০০-২২,৪৯০।

সরকারি বেসরকারি সব ধরনের চাকরির খবর সবার আগে পাবেন এই ওয়েবসাইটে bishaljobsez360.com । তাই যেকোনো ধরনের চাকরির খবর পেতে ভিজিট করুন আমাদের ওয়েবসাইটে । স্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তর চাকরি বিজ্ঞপ্তি সম্পর্কিত যাবতীয় তথ্য দেখতে নিচের ছবিটি লক্ষ্য করুন।

বিস্তারিত তথ্য দেখুন নিচের ছবিতে।

আবেদনে শেষ তারিখঃ ২৭ ডিসেম্বর ২০২০

অফিশিয়াল ওয়েবসাইটঃ www.hed.gov.bd

আবেদনের নিয়মঃ

আগ্রহী প্রার্থীরা অনলাইনে http://hed.teletalk.com.bd ওয়েবসাইটের মাধ্যমে আবেদন করতে পারবেন।
বাংলাদেশের নিভৃত পল্লীর জনগণসহ আপামর জনগোষ্ঠীর দোরগোড়ায় স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা অবকাঠামোগত সুযোগ সুবিধা তথা স্বাস্থ্য সেবা পৌঁছে দেয়ার জন্য স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের স্বাস্থ্য উইং এর অধীনে ১৯৭৪ বিল্ডিং প্ল্যানিং এন্ড ডিজাইন ইউনিট (বিপিডিইউ) এবং পরিবার পরিকল্পনা উইং এর অধীনে ১৯৭৯ সালে কনষ্ট্রাকশন ম্যানেজমেন্ট সেল (সিএমসি) নামে দুটি ইঞ্জিনিয়ারিং ইউনিট/সেল গঠন করা হয়।

রূপকল্প : মানসম্মত স্বাস্থ্য অবকাঠামো উন্নত স্বাস্থ্যসেবার সহায়ক।

অভিলক্ষ্য : যথাসময়ে স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা অবকাঠামো নির্মাণ, উন্নীতকরণ এবং বিদ্যমান অবকাঠামো সম্প্রসারণসহ মানসম্মত মেরামত ও রক্ষণাবেক্ষণ এর মাধ্যমে স্থাপনাসমূহকে উন্নত স্বাস্থ্যসেবা প্রদানের উপযোগী রাখা।

চার-পাঁচ বছর ধরেই দেশে শিক্ষিত ব্যক্তিদের জন্য চাকরির বাজার খুব কঠিন হয়ে উঠছিল। শিক্ষিত ব্যক্তিদের মধ্যে বেকারত্বের হার ৪০ থেকে ৫০ শতাংশ, যা পৃথিবীর যেকোনো দেশের তুলনায় অনেক বেশি।

গত বছরের মার্চ থেকে করোনার প্রাদুর্ভাব শুরুর পর চাকরির বাজার আরো কঠিন হয়ে ওঠে। চলতি বছরের শুরুতে করোনা কিছুটা কমলে আশার আলো দেখা গিয়েছিল, কিন্তু আবারও করোনা

পরিস্থিতির অবনতি হওয়ায় চ্যালেঞ্জের মুখে পড়েছে চাকরির বাজার।

জানতে চাইলে বিডি জবসের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা এ কে এম ফাহিম মাশরুর কালের কণ্ঠকে বলেন, গত বছর করোনার প্রথম পর্যায়ে ৭০ থেকে ৮০ শতাংশ পর্যন্ত চাকরির বিজ্ঞাপন কমে গিয়েছিল।

স্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তর নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি

এরপর নভেম্বর থেকে চলতি বছরের মার্চ পর্যন্ত চাকরির বাজার অনেকটাই স্বাভাবিক হয়ে আসছিল। কিন্তু করোনার দ্বিতীয় ওয়েভ শুরুর পর এপ্রিল মাসে এরই মধ্যে ৫০ শতাংশ চাকরির বিজ্ঞাপন কমেছে।

এখন এই অবস্থা যদি তিন-চার মাস অব্যাহত থাকে, তাহলে তা চাকরির বাজারে বড় ধরনের প্রভাব ফেলবে।

গত বছরের আগস্টে প্রকাশিত আন্তর্জাতিক শ্রম সংস্থার (আইএলও) এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, করোনায় বাংলাদেশের তরুণদের মধ্যে বেকারত্বের হার দ্বিগুণ হয়েছে।

আগে ১৫ থেকে ২৪ বছর বয়সী তরুণদের মধ্যে প্রতি ১০০ জনে গড়ে ১২ জন বেকার ছিলেন।

এখন তা বেড়ে প্রায় ২৫ জন হয়েছে। এর সঙ্গে আছে পুরনো ২৭ লাখ বেকার।

করোনার স্বল্প মেয়াদি প্রভাবে বাংলাদেশে কর্মসংস্থান হারাতে পারে ১১ লাখ ১৭ হাজার যুব শ্রমশক্তি।

About admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *